আক্কেলপুরে পরিচয় পত্র ছাড়াই চলছে সাংবাদিকতা ব্যবসা”প্রশাসনও জানেন না প্রকৃত সাংবাদিক কারা

Share It
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

রিপোর্টারঃ- নিরেন দাস। যুগে যুগে সাংবাদিকদের বলা হয়ে থাকে জাতির বিবেক এমনকি এ মহৎ পেশাটিকে বলা হয় ন্যায়ের পক্ষে কলম সৈনিক এমনকি এ পেশাটি যারা সঠিক ভাবে পালন করেছে তারা যুগে যুগে মিথ্যা মামলা, নিযার্তন সহ বিভিন্ন অত্যাচার তাদের সইতে হয়েছে তবুও তারা যুদ্ধ চালিয়ে গিয়েছে। কিন্তু আজ কোথায় এসে দাড়িয়েছে এ মহৎ পেশা ভাবেই লজ্জা  লাগে।

বর্তমানে কিছু অসাধু সুবিধাভোগীরা তাদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য ফেইসবুক অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলিতে তাদের দুই চারটি কপি নিউজ পাঠিয়ে সাংবাদিকের পরিচয় দিয়ে বেড়াচ্ছেন যাদের অধিকাংশেরি নেই কোন পরিচয় পত্র নেই তাদের নিউজ পোর্টালের অনুমোদন পত্র। বর্তমানে সারা দেশে এমন টি চিত্র দেখা গেলেও জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর উপজেলায় এ এতই সাংবাদিক তৈরি হয়েছে যাদের প্রশাসনও চিনতে হিমশিম খাচ্ছে আসল সাংবাদিক কারা কাকে কি তথ্য দিবো।

এ উপজেলার সুশীল সমাজের নাগরিকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে বেশ কয়েকজন ক্যামেরাবাজ পরিচয় পত্রহীন সাংবাদিকদের জন্য অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এ উপজেলার গ্রামগঞ্জের মানুষ যেখানেই যাই তাদেরকে ক্যামেরা নিয়ে ঘুরতে দেখা যায়। এমন তথ্যের ভিক্তিতে প্রমাণ সহ পাওয়া যায় আক্কেলপুর উপজেলার সার্ব রেজিস্ট্রার অফিসের নকল নবিশ মান্নান নামের একজন সুবিধাবাদী সে মোটা অংকের অর্থ ব্যয় করে একটি জাতীয় দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে আসছেন এ সাংবাদিকতার পরিচয় দেয়ার ফলে তিনি প্রতিনিয়তই মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন এমনকি তারই আপন ভাতিজাও ওই পত্রিকার সাংবাদিকতার পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজি করছেন এমনকি বিভিন্ন পত্রিকায় নিয়োগ নিয়ে দিবে বলে অনেকর কাছ থেকে মোট অংকের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন এ চাচা ভাতিজা আরও জানা তার ভাতিজারও কোন সাংবাদিকতার পরিচয় পত্র নেই। তাদের এমন অভিযোগের ভিক্তিতে প্রতিবেদক দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার হেড অফিসে যোগাযোগ করলে অফিস জানাই আক্কেলপুর থেকে মান্নান কে কোন নিয়োগ বা পরিচয় পত্র দেয়া হয়নি।

এমন আরও একটি চিত্র ভেসে উঠেছে আক্কেলপুরের সাংবাদিক পরিচয় দাতা সাউন্ড সিস্টেম মাইক ব্যবসায়ী যার মূল উদ্দেশ্য সাংবাদিকতার পরিচয় দিয়ে প্রশাসন প্রোগ্রাম গুলোতে সাউন্ড সিস্টেম বেশি ডিমান্ডে ভাড়া দিয়ে অর্থ উপার্জন করাই তার, কিন্তু আদতেই তিনি কোন পেশাদার সাংবাদিক নন তিনি জয়পুরহাটের একটি স্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টালে দু চারটা নিউজ করে থাকেন যাকে কিছু দিন আগে গোপীনাথপুরে ত্রানের চাউল চুরি সংক্রান্ত সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে উপস্থিত প্রশাসন তার সাংবাদিকতার পরিচয় জানতে চাইলে তিনি ভূয়া পরিচয় পত্র দেখালে প্রশাসন তাকে হেনেস্তাও করেছিল। এবং তাহার নিত্যদিনের কাজ প্রকৃত পরিচয় পত্র ধারী সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা অপপ্রচার, সাংবাদিকদের চাঁদাবাজ, অস্ত্রবাজ বলে বেড়ানোই তার মূল উদ্দেশ্য।
এমন আরও অসংখ্য অনুমোদন বিহীন অনলাইন পত্রিকা ও দৈনিক জাতীয় পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় ধারী সাংবাদিক রয়েছেন যাদের নিউজ ধরা হলেও অফিস থেকে কোন নিয়োগ বা পরিচয় পত্র দেয়া হয়নি বলেও অফিস গুলো সূত্রে জানা গিয়েছে তারা সাংবাদিকদের পরিচয় দিলে অবশ্যই তাদের পরিচয় পত্র দেখুন।

কেননা এমন পরিচয় পত্র হীন সাংবাদিকদের সংখ্যা বাড়াই স্থানীয় প্রশাসনও চিনতে পারেন না আসলে প্রকৃত সাংবাদিক কারা,এমন বিষয় নিয়ে আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবু ওবায়েদ এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, আসলে ঘটনা সত্য আমরাই মাঝেমধ্যে চিনতে পারিনা কে সাংবাদিক,তিনি আরও বলেন এখন থেকে কোন তথ্য সাংবাদিক পরিচয়ে নিতে আসলে অবশ্যই তার পরিচয় পত্র দেখবো তার পর তাকে তথ্য দিবো।

এবিষয় চ্যানেল টুয়েন্টি সিক্স এর চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের নিকট এসব পরিচয় পত্রহীন সাংবাদিকদের বিষয়টি অবগত করলে তিনি জানান আজ এদের মতো সুবিধাবাদী নামধারীরা সাংবাদিকের মতো মহৎ পেশাটিকে সমালোচিত পেশায় দাঁড় করিয়েছে, তিনি আরও বলেন যাদের পরিচয় পত্র নেই সেই সব ভূয়া সাংবাদিকদের তালিকা তৈরি করে প্রশাসন নিকট জমা দিন পাশাপাশি একটি কপি আমার নিকট পাঠান বিষয়টি আমি দেখবো।

জিনিয়াস বাংলা টিভির উপদেষ্টা ও ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক, সেক্রেটারি বাংলাদেশ তৃণমূল সাংবাদিক কল্যাণ সোসাইটি(BTSKS) কেন্দ্রীয় কমিটির সেক্রেটারি মোরশেদুল আলম চৌধুরীর
সাথে এসব কবিতা লেখা সাংবাদিকদের বিষয়টি জানালে তিনি বলেন আমি জয়পুরহাটের এমন বিষয় টি আগেই জেনেছি আপনি তালিকা দিন আমি কেন্দ্র বিষয়টি জানাবো।

—- প্রথম পর্ব আরও আসছে —-।


Share It
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here