বিরাট কোহলি কি মাঠে প্রয়োজনের তুলনায় একটু বেশিই আগ্রাসী?— এমন প্রশ্ন করে বসছেন কেউ কেউ। বিরাটের আগ্রাসী মনোভাব নিয়ে আলোচনা, তর্ক বিতর্ক চলছে অনেকদিন ধরে। আর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে পরাজয়ের জের ধরে বিতর্কের আগুনে যেন নতুন করে ঘি পড়লো।

এই অবস্থায় কোহলির পাশে দাঁড়ালেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক ও কিংবদন্তি অ্যালান বোর্ডার। জানালেন, কোহলির এমন আচরণ তার খুবই পছন্দ। তাই কোহলিকে এমন আচরণ ধরে রাখতেও বলেছেন বোর্ডার। অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমের একটি টকশোতে তিনি বলেন, ‘কোহলির এমন আগ্রাসী আচরণ আমার খুব ভালো লাগে। এমন একজন ক্রিকেটারের অবশ্যই প্রয়োজন রয়েছে।’

শুধুমাত্র ব্যাট হাতে ২২ গজে বিধ্বংসী নন কোহলি। ফিল্ডার-অধিনায়ক হিসেবে বেশ বিধ্বংসী। প্রতিপক্ষের কোন ব্যাটসম্যানের আউটের পর আন্তর্জাতিক বা যেকোনো আসরে যে ধরনের অঙ্গ-ভঙ্গি প্রদর্শন করেন কোহলি, সেটি চোখ এড়ায় না টিভি ক্যামেরা ও ভক্তদের। বড়-বড় দাড়িতে ভরা মুখে বিধ্বংসী এক রূপ দেখান কোহলি।

চলমান অস্ট্রেলিয়া সফরে যেন আরও বেশি আগ্রাসী হয়ে উঠেছেন কোহলি। এতে কোহলিকে নিয়ে সমালোচনা এখন সর্বক্ষেত্রে। তবে বোর্ডার আছেন কোহলির সাথেই। কোহলির এমন আগ্রাসী আচরণ খুবই উপভোগ করছেন তিনি, ‘ক্রিকেট অঙ্গনে এমন খেলোয়াড়ের অবশ্যই প্রয়োজন আছে। তার মধ্যে দুর্দান্ত আবেগ-তেজ দেখা যায়। বর্তমানে কোহলি ছাড়া এরকম চরিত্র কোথায়? সবাই নিজেদের পেশাদারিত্বকে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছে। কোহলির এমন আচরণ আমি উপভোগ করছি।’ কোহলির এমন আচরণ কখনও খেলার মাঠে বোর্ডার দেখননি বলেও জানান, ‘প্রতিপক্ষের কোনো উইকেটের পতন হলে কোহলির আবেগটা বোঝা যায়। এতটা আবেগ প্রবণ আমি অন্য কোনো অধিনায়ক বা খেলোয়াড়ের মাঝে দেখিনি।’

দলকে উজ্জীবিত ও দেশের প্রতি আবেগ থেকে কোহলি মাঠে এমন আগ্রাসী আচরণ করেন বলে মনে করেন বোর্ডার, ‘কোহলি দেশ-বিদেশ সব মাঠেই জিততে চায়। কোহলির মতো দ্বিতীয় কেউ নেই যে, নিজের আবেগকে এভাবে প্রকাশ করতে পারে। দলকে উজ্জীবিত রাখার চেষ্টা আছে অধিনায়ক কোহালির মধ্যে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here