করোনাকালে হাসপাতাল মানেই ‘শ্বাসরুদ্ধকর অভিজ্ঞতা’

Share It
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares

করোনাকালে হাসপাতাল মানেই যেন শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা। চারদিকে হাহাকার, ছোটাছুটি আর আর্তচিৎকার। স্বজন হারানোর কান্না আর মৃত্যুর মিছিল। আছে নানা প্রতারণাও। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রতিদিনই ঘটছে নানা মানবিক ও অমানবিক ঘটনা।

হঠাৎ শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে ৮৫ বছর বয়সী মা আমেনা খাতুনকে আনা হয় হাসপাতালে। দুনিয়ার সব চিন্তা মাথায় নিয়ে মমতাময়ী মাকে হুইল চেয়ারে করে হন্তদন্ত হয়ে ছোটাছুটি সন্তানদের। ফেনী থেকে শ্বাসকষ্ট নিয়ে আসা বাবাকে নিয়েও একই অবস্থা সন্তানদের। সবার প্রাণপণ চেষ্টা স্বজনদের বাঁচানোর।

এক সন্তান জানান, হাসপাতালে নেয়া হলে একবার ওইখানে আবার ওইখানে নিতে রোগীর অবস্থা শেষ হয়ে যায়।

কারো স্বজন হারানোর কান্না। আবার কারো বা বাঁচানোর আকুতি আর দুশ্চিন্তা। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ঘিরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে এরকম দুঃখ আর কষ্টের নানা গল্প।

করোনাকালে এমন কিছু গল্পও আছে যা মানুষকে লজ্জিত করে। আছে মৃত্যুর সাথে লড়তে থাকা ভাসমান কিছু মানুষের যন্ত্রণারও।

ভয়াবহ এমন পরিস্থিতিতে সক্রিয় দালাল চক্র। তাদের ফাঁদে প্রতারিত হওয়ার ঘটনাও ঘটছে প্রতিনিয়ত।

তবে এমন দুঃসময়ে স্বজনরা যেখানে কোভিড রোগীদের ফেলে পালাচ্ছে, সেখানে কিছু মানবিক মানুষ আছেন যারা অ্যাম্বুলেন্স আসলেই ট্রলিহাতে ছোটেন তাদের বহনে।

ট্রলিম্যান জানান, খারাপ অবস্থা নিয়ে আসা একজন রোগীকে যখন ট্রলি দিয়ে সাহায্য করতে পারি; সে সময়ে অনেক ভালো লাগে।

নানা সংকট থাকলেও আন্তরিকতা আর জীবনের মায়া ত্যাগ করে চিকিৎসকরা মানবিকতার হাত বাড়াচ্ছেন বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এসএম হুমায়ূন কবির।

তিনি বলেন, চিকিৎসকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছেন। তারা দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

দিন শেষে রাত নামে কিন্তু তারপরও থামে না চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালমুখী মানুষের স্রোত।


Share It
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here