এবার কোভিড-১৯-এর ভ্যাকসিন ৯৪ দশমিক ৫ শতাংশ কার্যকর বলে দাবি করেছে মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান মর্ডানা। ফাইজার এণ্ড বায়োএনটেকের পরেই প্রতিষ্ঠানটি সোমবার (১৬ নভেম্বর) এ তথ্য জানায় আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

মর্ডানা যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় ভ্যাকসিন যা করোনা প্রতিরোধে ব্যাপক কার্যকরী বলে দাবি করছে। এ ভ্যাকসিনটি নিয়ে আরও গবেষণায় নতুন কোনো তথ্য পেলে মার্কিন খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের কাছে জরুরিভিত্তিতে অনুমোদন চাইবে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতাকে গুরুত্বপূর্ণ মুহুর্ত বর্ণনা করে বিবৃতিতে দিয়েছেন মর্ডানার সিইও স্টিফেন ব্যানসেল। টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল পাওয়া গেছে বলে দাবি করেন তিনি।

তাদের ট্রায়ালে স্বেচ্ছাসেবকদের বড় কোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি দেখা যায়নি। ট্রায়ালে ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক অংশ নিয়েছিল এবং তারা ভ্যাকসিনের ২টি ডোজ নিয়েছে। ফলাফলে দেখা গেছে, ভ্যাকসিনটি করোনা প্রতিরোধে ৯৪.৫ ভাগ কার্যকর। তবে, মর্ডানার এই টিকা নেয়ার পর কতদিন কার্যকারিতা থাকবে এ বিষয়ে কোন তথ্য দিতে পারেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

এর আগে ক্যানডিটেড ভ্যাকসিন যা ৯০ শতাংশের বেশি মানুষকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে পেরেছে বলে প্রাথমিক এক গবেষণায় জানায় বায়োএনটেক অ্যান্ড ফাইজার।

উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ফাইজার অ্যান্ড বায়োএনটেক একে বিজ্ঞান এবং মানবতার জন্য মহৎদিন বলে অভিহিত করেছে।

ফাইজার অ্যান্ড বায়োএনটেকের ক্যানডিটেড ভ্যাকসিনটি ৪৩ হাজার ৫০০ মানুষের শরীরে পরীক্ষা করা হয়েছে। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। এ মাসের শেষের দিকে জরুরি অনুমোদনের জন্য আবেদন জানাবে সংশ্লিষ্টরা।

কার্যকরি একটি ভ্যাকসিনকে ভালো চিকিৎসার পাশাপাশি সংক্রমণ থেকে রক্ষায় আরোপ করা বিধিনিষেধ থেকে মুক্তি পাওয়ার অন্যতম উপায় হিসেবে দেখা হচ্ছে।

এরপরই স্পুটনিক-৫ ভ্যাকসিন ৯২ শতাংশ কার্যকরের দাবি করে রাশিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here