কলারোয়ায় ভাড়া করা দূর্বৃত্তদের হামলায় ৭ ব্যক্তি জখমসহ এক যুবক আটক

ফিরোজ জোয়ার্দ্দার-ঃ সাতক্ষীরার কলারোয়ায় পারিবারিক কলাহের জের ধরে পূর্ব শত্রুতার সাতক্ষীরা থেকে ভাড়া করা দূর্বৃত্তরা এসে হামলা চালিয়ে একই পরিবারের নারী-পুরুষ মিলে সাত জনকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ এক যুবককে আটকসহ মোটরসাইকেল থানায় নিয়ে আসেন। ঘটনাটি ১০ই আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে কয়লা ইউনিয়নের শ্রীপতিপুর গ্রামে ঘটে। হামলায় আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে ভর্তি করে দেয়। এ বিষয়ে শ্রীপতিপুর গ্রামের হান্নান গাজীর ছেলে ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ৭জনকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। থানায় দেয়া অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রফিকুল ইসলামের স্ত্রী সুফিয়া খাতুনের সাথে একই গ্রামের মৃত মোহর আলীর ছেলে আলমগীর হোসেনের কথা কাটাকাটি হয়। তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে তারা হামলা চালিয়ে খাদিজা খাতুন (২৫), সুফিয়া খাতুন (৪০), নয়ন (২২), মাহবুর (১৪), উজ্জ্বল (১৯), বাবু (১৯), সাইফুল (১৮)কে জখম করেন। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে আলমগীর হোসেন নামের এক যুবককে আটক করেছে। কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মুনীর উল গীয়াস জানান, দুই পক্ষের সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে এক জনকে আটক করেন। আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরেে প্রস্তুতি চলছিলো বলে তিনি জানান। এদিকে হাসপাতালে আহতরা জানান, প্রতিবেশী রশিদ, রহিম, আলমগীর ও কাজলের মদদে সাতক্ষীরা থেকে ছোটন, আকাশ, শাওন, মান্নানসহ মোটর সাইকেলে কয়েকজন দূর্বৃত্তদের ভাড়া করে এনে পরিকল্পিতভাবে লোহার রড, হাতুড়ী দিয়ে তাদের উপর হামলা করে রক্তাক্ত জখম করেন। হামলার সময় পুলিশ আলমগীরকে আটক করলে বাকীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় কয়লা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ইমরান হোসেন বলেন, শুনেছি সাতক্ষীরা থেকে দূর্বৃত্তদের ভাড়া করে এনে তার ইউনিয়নের শ্রীপতিপুর গ্রামের কয়েক জন ভোটারকে পিটিয়ে জখম করেছে। তারা এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনি আহতদের দেখতে হাসপাতালে ছুটে আসেন এবং চিকিৎসার খোঁজ খবর নিয়ে ঘটনার সাথে যারাই জড়িত থাকুক না কেন অবশ্যই আইন মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে আশ্বাস্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!