খননে যৌবন ফিরেছে গাজী খালি নদীর

Share It
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

মাহবুবুল আলম,,নিজস্ব প্রতিবেদক(ধামরাই): খননের পর নাব্যতা ফিরে
পেয়ে যৌবনে ফিরেছে ঢাকার ধামরাই ও মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া দিয়ে বয়ে যাওয়া
গাজী খালি নদীর। আর এ গাজী খালি নদী খননের ফলে ধামরাই ও সাটুরিয়া
উপজেলার বিস্তৃর্ণ অঞ্চলের চেহারা পাল্টে যাচ্ছে। একই সঙ্গে নদীটি খননের ফলে
নতুনভাবে বোরো ও আমন ফসলের জমি উৎপাদনের আওতায় আসবে বলে আশা
করছেন কৃষকরা।

গাজী খালি নদী খননের ফলে ধামরাই ও সাটুরিয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের
কৃষি জমিতে শুষ্ক মওসুমে বিনা খরচে জমিতে সেচ দিতে পারবে কৃষকরা। এছাড়া
জেলেরা মুক্ত জলাশয়ে মাছ চাষ এবং নদী পারের মানুষ আর্সেনিকমুক্ত পানি
ব্যবহার করে জীবিকা নির্বাহ করতে পারবে।

তাই নদী খননের ফলে প্রায় বিশ বছর ধরে খরস্রোতা মৃতপ্রায় গাজী খালি নদীতে
এখনই পানির প্রবাহ সৃষ্টি হয়েছে। এলাকার মানুষ মনে করেন খননের ফলে গাজী
খালি নদীর যৌবন ফিরে এসেছে।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ২০ বছর আগে সাটুরিয়ার গাজীখালী নদীতে পানি থৈথৈ
করত। চলত পালতোলা নৌকা। নদীর স্রোতে ভেসে উঠত শুশুক। বহু বছর আগে
সাটুরিয়া উপজেলার গোপালপুরের ধলেশ্বরী নদী থেকে গাজীখালীর শাখার উৎপত্তি।
গোপালপুর হয়ে সাটুরিয়ার গাজীখালী নদীর প্রায় পাঁচ কিলোমিটার খালের প্রবেশমুখ
ভরাট হয়ে নদীর প্রবাহ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে গাজীখালী নদীতে প্রায় ২০ বছর ধরে
পানি প্রবেশ করতে পারেনি। কিন্তু এ বছর পুনঃখনন করাতে নদীতে এবার স্রোত
এসেছে আর পানিতে ভরে গেছে।

এর আগে গত বছর নাব্যতা ফেরাতে মৃতপ্রায় গাজীখালি নদীর পুনঃখনন কাজ শুরু
হয়। ১৩কোটি ১৯ লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা ব্যয়ে গাজীখালি নদী পুনঃখনন প্রকল্পের
কাজটি বাস্তবায়িত হয় স্থানীয় সাংসদ ও ঢাকা জেলা আওয়ামীলীগ ও বায়রা'র
সভাপতি বীর মু্ক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব বেনজীর আহমদ হাত ধরে।


Share It
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here