গার্ড অব অনার পেলেন না মুক্তিযোদ্ধা ডা. আলী আশরাফ! ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

Share It
  • 168
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    168
    Shares

মৃত্যুকালে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নির্ধারিত রাষ্ট্রীয় সম্মাননা পাননি বাঁশখালী উপজেলার বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা ডা. আলী আশরাফ। রাষ্ট্রীয় গার্ড অব অনার ছাড়াই সোমবার (২৭ জুলাই) সকালে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার শেখেরখীল এলাকায় নিজ বাড়ির কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। সরকারের তরফ থেকে পাঠানো এসিল্যান্ড সময়মতো সেখানে না পৌঁছানোয় এ ঘটনা ঘটেছে।

এ ব্যাপারে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

বাঁশখালী উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান নুর হোসাইন এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, এই লজ্জা আমরা রাখবো কোথায়? যাদের হাত ধরে আমরা স্বাধীন এই বাংলাদেশ পেয়েছি অন্তিম যাত্রায় সেই মুক্তিযোদ্ধাকে আমরা সামান্য সম্মানটুকু দেইনি।

নুর হোসাইন বলেন, সকাল ১১টায় মুক্তিযোদ্ধা ডা. আলী আশরাফের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয় । নির্ধারিত সময়ে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু দাফনের আগে তাকে রাষ্ট্রীয় গার্ড অব অনার দেওয়া হয়নি। জানাজার অনেক পরে এসিল্যান্ড ঘটনাস্থলে এসেছেন। ততক্ষণে উনার দাফন হয়ে গেছে।

প্রয়াত ডা. আলী আশরাফ ছিলেন শেখেরখীল ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার ও বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক। ডা. আলী আশরাফ বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারী শহীদ মৌলভী সৈয়দের বড় ভাই।

এ ঘটনায় এলাকায় বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয়রা। মুক্তিযোদ্ধা ডা. আলী আশরাফকে রাষ্ট্রীয় গার্ড অব অনার না দেওয়ায় এলাকাবাসী সড়কে নেমে আসেন।

অন্যদিকে এ ঘটনা তদন্তে এক সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। কমিটিকে এক কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার বলেন, একটি মিটিংয়ে থাকায় আমি যেতে পারিনি। এসিল্যান্ড আতিকুর রহমানকে পাঠানো হয়েছিল। দূরবর্তী এলাকা হওয়ায় তিনি নির্ধারিত সময়ে সেখানে পৌঁছাতে পারেননি।

তিনি আরও বলেন, রাস্তার দুই পাশে সিএনজি রাখায় তিনি গাড়ি নিয়ে যেতে পারেননি। কিছু পথ পায়ে হেঁটে গেছেন। এ কারণে তারা জানাজা পাননি। পরে উনার কবরের পাশে সম্মাননা জানানো হয়েছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. কামাল হোসেন বলেন, খুবই দুঃখজনক বিষয়। গার্ড অব অনার ছাড়াই মুক্তিযোদ্ধাকে দাফন করা হয়েছে। বিষয়টি আমাদের নলেজে আসার পর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ড. বদিউল আলমকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আগামীকাল মঙ্গলবার তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে কথা বলবেন। কমিটিকে এক কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


Share It
  • 168
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    168
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here