চট্টগ্রামের পটিয়ায় ৪ মুক্তিযোদ্ধার চলাচলের পথ অবরুদ্ধ!

Share It
  • 197
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    197
    Shares

চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভায় আলী মুন্সি খাঁন বাড়ির ৪ মুক্তিযোদ্ধাসহ ১০ পরিবারের যাতায়তের পথ  অবরুদ্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্ত মুক্তিযোদ্ধারা পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তিনি তা গ্রহণ করে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে পটিয়া থানার ওসির কাছে প্রেরণ করেছেন বলে জানা গেছে।

মুক্তিযোদ্ধাদের দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পটিয়া পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের আলী মুন্সি খাঁন বাড়িতে মুক্তিযোদ্ধা ও পটিয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মোস্তাফিজুর রহমান গেজেট নং ৪০০২, আবুল কাসেম গেজেট নং ২৮২৫, আবু তৈয়ব গেজেট নং ৬৬৬৩ ও মুহিবর রহমান মুবিন গেজেট নং ২৭৯০ এর বসতবাড়ি আছে। তারা জানান তাদের বসত বাড়িতে তারা যুগ যুগ ধরে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছেন। সেখানে যাতায়তের পথটি পৌরসভার অর্থায়নে ব্রিক সলিং ও নালা নির্মাণ করা হয়।

এরই মধ্যে তিন মাস ধরে করোনাভাইরাসের কারণে তারা পরিবার নিয়ে চট্টগ্রাম শহরে অবস্থান করার সুযোগে প্রতিপক্ষ মো. আহসান এবং মোহাম্মদ হোসেন তাদের বাড়িতে চলাচলের শত বছরের একমাত্র পথটি ঘেরাবেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে। এতে ৪  মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সদস্যরা এক প্রকার গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন। তারা এ ব্যাপারে প্রতিকার প্রার্থনা করে পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে এ বিষয়ে তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তিনি তা ওসি পটিয়ার কাছে প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ মোহাম্মদ আহসানের সাথে শনিবার বিকেলে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে  তিনি জানান, এটি আমার বাবার ক্রয়কৃত সম্পত্তির অংশ। আমরা শহরে থাকায় তারা এটি এতদিন ব্যবহার করেছিল। এখন আমাদের ঘরের মেয়েদের পর্দার জন্য জায়গার দরকার হওয়ায় আমরা তা ঘেরা বেড়া দিয়েছি। তারপর ও এ নিয়ে কাউন্সিলরের অফিসে বৈঠক হয়েছে। সেখানে তারা শর্ত দেওয়ায় বৈঠক এখনো শেষ হয়নি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইউএনও ফারহানা জাহান উপমা বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের বাড়ির চলাচল পথ বন্ধের অভিযোগ পেয়েই আমি এ ব্যাপারে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে ওসি পটিয়ার কাছে তা প্রেরণ করেছি।

পটিয়া থানার ওসি মো. বোরহান উদ্দিন বলেন, আমরা উভয় পক্ষকে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলেছি। তদন্তকারী কর্মকর্তা পটিয়া থানার উপ পরিদশক মো. মুক্তার ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন।

তিনি জানান, জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধ বিধায় আমরা শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলেছি। তবে পটিয়া পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ সাইফুল ইসলাম বিষয়টি সমাধানে উদ্যোগ নিয়েছেন বলে জানান।


Share It
  • 197
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    197
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here