অস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার জয়ী ও জেমস বন্ড খ্যাত অভিনেতা শন কানারি মারা গেছেন। আটলান্টিক মহাসগরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পাশে অবস্থিত দ্বিপ বাহামাসে ঘুমের মধ্যে তিনি মারা যান। কানারি বেশ কিছুদিন যাবত শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। তার বয়স হয়েছিল ৯০ বছর।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) বিবিসি এক প্রতিবেদনে স্ককটিস এ অভিনেতার মৃত্যুর খবর জানানো হয়।

নিজেকে ‘সুদর্শন অস্ট্রেলিয়ান’ বলে দাবি করা এই ভদ্রলোকের ভালোই দম্ভ আর আত্মবিশ্বাস ছিল নারীদের ব্যাপারে। এজন্যই হয়তো শূন্য অভিনয় দক্ষতা বা অভিজ্ঞতা নিয়েও অনায়াসেই জেমস বন্ডের মতো রোল পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি! থ্রিলার অভিনয়ের জন্য বিখ্যাত এ অভিনেতা কানারি অস্কার, দুটি বাফটার, তিনটি গোল্ডেন গ্লোবস জিতেছেন। শন কানারি নিজেকে “বন্ড, জেমস বন্ড” হিসেবে পরিচয় দিতে পছন্দ করতেন। ২০১৪ সালে স্কটল্যোন্ডের স্বাধীনতা পক্ষে অবস্থান নিয়ে শন কানারি রাজনীতির মাঠে উত্তাপ ছড়ান।

শন কনারি অভিনীত জেমস বন্ড সিরিজের হিট ছবি গোল্ডফিঙ্গার-এর থিম সং-এর একটি লাইন উল্লেখ করে রেডিও টাইমস-এর প্রধান সম্পাদক বলেন, শন কনারি আবারও এটাই প্রমাণ করলেন যে তিনিই হলেন কিংবদন্তি কিং জেমস বন্ড, যাঁর স্পর্শে সবকিছু সোনায় পরিণত হয়েছে।
১৯৬২ সালে ডক্টর নো সিনেমার মধ্য দিয়ে বন্ড-এর পৃথিবীতে পা রাখেন শন কনারি। একে একে করেন ফ্রম রাশিয়া উইথ লাভ, গোল্ডফিঙ্গার, থান্ডারবল, ইউ অনলি লিভ টোয়াইস, ডায়মন্ডস আর ফরএভার, নেভার সে নেভার অ্যাগেইন ছবিগুলো।

জেমস বন্ড মূলত বিখ্যাত ঔপন্যাসিক ইয়ান ফ্লেমিং কর্তৃক সৃষ্ট উপন্যাসের কাল্পনিক চরিত্র বিশেষ। ১৯৫৩ সালে রচিত এ উপন্যাসে জেমস বন্ড রয়েল নেভি কমাণ্ডার হিসেবে রয়েছেন। জেমস বন্ড নিয়ে সিরিজ আকারে নির্মিত অসংখ্য উপন্যাস, চলচ্চিত্র, কমিকস্‌ এবং ভিডিও গেমের প্রধান চরিত্রে রয়েছেন জেমস বন্ড। লন্ডনের সিক্রেট ইন্টেলিজেন্স সার্ভিস বা এসআইএসের প্রধান গুপ্তচর হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় তাকে। ১৯৯৫ সালের পর থেকে সিক্রেট ইন্টেলিজেন্স সার্ভিস বা এসআইএসের নাম পরিবর্তিত হয়ে এমআই৬ নামকরণ করা হয়।

শন কনারি, জর্জ ল্যাজেনবি, রজার মুরে, টিমোথি ডাল্টন, পিয়ার্স ব্রুসনান এবং ড্যানিয়েল ক্রেইগ – এ ছয় জনের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে জেমস বন্ডের প্রতিকল্প হিসেবে চিত্রিত করা হয়েছে। তবে, বন্ডকে প্রথমবারের মতো চলচ্চিত্ররূপ প্রদান করা হয়েছে মার্কিন টেলিভিশনে। ব্যারি নেলসন ১৯৫৪ সালে উপন্যাস হিসেবে ক্যাসিনো রয়েলে বন্ডের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। পরবর্তীতে ১৯৫৬ সালে বব হলনেসের পরিচালনায় দক্ষিণ আফ্রিকান রেডিওতে মুনর‌্যাকার উপন্যাস অবলম্বনে ধারাবাহিকভাবে নাটক প্রচার করা হয়।

সম্প্রতি রেডিও টাইমস-এর পাঠকেরা ভোট দিয়েছেন শ্রেষ্ঠ বন্ড নির্বাচনের জন্য। সেখানে শন কনারি বিজয়ী। তাঁর কাছে হেরে গেলেন রজার মুর, পিয়ার্স ব্রসনান, ড্যানিয়েল ক্রেইগের মতো বন্ড অভিনেতারা। মোট ১৪ হাজার ভক্ত অংশ নেন এই ভোটাভুটিতে। নানা পর্ব পেরিয়ে অবশেষে চূড়ান্ত পর্বে ৪৪ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন শন কনারি। আর ৩২ শতাংশ ভোট পেয়ে টিমোথি ডালটন এবং ২৩ শতাংশ ভোট পেয়ে পিয়ার্স ব্রসনান যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here