ডিজিটাল কমার্স নীতিমালার সংশোধন দাবি

Share It
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares

ই-কমার্স ব্যবসায় সম্প্রসারণ এবং নিরাপত্তা দানে ‘জাতীয় ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা’-এর খসড়া করা হয়। গত বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে কতিপয় নীতিমালায় সংশোধন প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়।

এই খসড়া নীতিমালার কয়েকটি সংশোধিত পরিবর্তন প্রস্তাব স্থানীয় প্রযুক্তি ব্যবসার সঙ্গে সরাসরি সাংঘর্ষিক বলে উল্লেখ করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার। গত শনিবার রাজধানীর বিসিএস ইনোভেশন সেন্টারে ‘জাতীয় ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা ২০১৮’ বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা জানান তিনি। সভায় বিসিএস, বেসিস, ই-ক্যাব, বাক্য, সিটি ও ফোরামসহ অন্যান্য তথ্যপ্রযুক্তি সংগঠনের নেতারা এবং স্টেকহোল্ডাররা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সুব্রত সরকার বলেন, ডিজিটাল নীতিমালার ৩, ৬ ও ৭ অনুচ্ছেদ এবং নীতিমালার প্রণীত ৭নং কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী এককভাবে বিদেশি প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ব্যবসা পরিচালনার সুযোগ রহিত করা ছিল।

দেশি ও বিদেশি কোম্পানির ইকুইটির হার ৫১:৪৯ ছিল। উপযুক্ত শর্তে মন্ত্রিপরিষদ কর্তৃক নীতিমালা অনুমোদিত হয়। তথ্য থও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ থেকে প্রেরিত একটি পত্রে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সম্পূর্ণ ইকুইটির সুযোগ প্রদান করতে চায়। সে লক্ষ্যে ৭নং কর্মপরিকল্পনা এবং ৩, ৬ ও ৭ নং অনুচ্ছেদ সংশোধনের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা শতভাগ ইকুইটি পেলে মূলত দেশে ব্যবসার কোনো উন্নতি হবে না।

কারণ, নীতি অনুসারে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা কোনো শিল্পকারখানা বা উৎপাদনকেন্দ্র খুলবেন না। তারা শুধু নিজেদের পণ্য মনমতো মূল্যে বিক্রি করবে। এতে দেশীয় ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) মহাসচিব মোহাম্মদ আবদুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, দেশীয় ব্যবসায়ীদের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে জাতীয় ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা হতে হবে।

ভারতের, বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলো ই-কমার্সে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার আগে দেশীয় প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলোকে দেশীয় নীতি পরিপূর্ণভাবে মেনে দেশে ব্যবসা করতে হবে। কোনোমতেই এককভাবে বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যবসা করার সুযোগ নেই।

ডিটিওর সদস্য সংগঠনের রীতি-নীতি মেনেই বিদেশি প্রতিষ্ঠান ব্যবসা করতে চাইলে শর্ত সাপেক্ষে অনুমতি পেতে পারে। সভায় বক্তারা ‘জাতীয় ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা ২০১৮’-এর যে নীতিগুলো স্থানীয় ব্যবসাকে ক্ষতির সম্মুখীন করতে পারে, এমন নীতিগুলোর পরিবর্তনের ব্যাপারকে গুরুত্ব দেন।


Share It
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here