এলাকার ওসি, ডিসিদের বলার পরও অপরাধ দমনে কার্যকর ব্যবস্থা না নিলে ভুক্তভোগীদের সরাসরি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ- ডিএমপি কার্যালয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন কমিশনার।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) সকালে রাজারবাগে কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মাধ্যমে পুলিশ ও সাধারণ মানুষের মধ্যে দূরত্ব কমে আসবে বলেও জানান তিনি।

মুজিববর্ষের মূলমন্ত্র, কমিউনিটি পুলিশিং সর্বত্র. এই স্লোগানে শনিবার রাজারবাগে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২০ আয়োজন করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ।

অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার বলেন, পুলিশের ভালো কাজে সবার আগে এগিয়ে আসার পাশাপাশি অসাধু সদস্যদের বিরুদ্ধে পুলিশ সদস্যদেরই সবার আগে প্রতিবাদ করতে হবে। এছাড়া যে কোনো অভিযোগের বিষয়ে সব সময় সবার জন্য তার দরজা উন্মুক্ত বলেও জানান ডিএমপি কমিশনার।

ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেন, এলাকার যে কোনো সমস্যা নিয়ে আপনারা পুলিশের সঙ্গে কথা বলেন। পুলিশ কথা না শুনলে আমার দরজা খোলা আছে, আমার সাথে কথা বলেন।

এদিকে, গণমাধ্যমে পুলিশের সমালোচনা করাকে ইতিবাচক আখ্যায়িত করে অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, এর মাধ্যমে অসাধুদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া সহজ হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আখতারুজ্জামান বলেন, অপরাধ সব কমিউনিটিতেই সংগঠিত হয়। সেগুলো পত্রিকাতে আসার জন্য কারণ রয়েছে। এতে আমরা শিক্ষা নিতে পারব।

কমিউনিটি পুলিশের মাধ্যমে সমাজে অপরাধ সংগঠিত হওয়ার আগেই তা থামানো সম্ভব বলেও জানান তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here