বাংলার কৃষক: জুবায়েদ মোস্তফা

Share It
  • 54
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    54
    Shares

বাংলার কৃষক
জুবায়েদ মোস্তফা
——————–­——–
সবাই অবগত, চাষাই সমাজের মেরুদণ্ড
অথচ দেশের আনাচেকানাচে দেখা মিলে চাষার দারিদ্র্য।
অতীতকাল হতেই কৃষকের পরিণতি বেজায় করুণ
অতি কষ্টে কৃষকের জীবন কোন ভাবে অতিক্রান্ত হয়
জীবনের প্রতিটি ধাপ পার হয় নিদারুণ।

সূর্য ওঠার আগেই নিয়োজিত হয় মাঠে
সারাটি দিন কাজ করে ক্ষেত খামারেই কাটে।
দেশের তরে নিঃস্বার্থে সর্বদা নিরলস ভাবে খাটে।
মাঠে ঘাটে কাজ করে প্রখর রৌদে জ্বলে পুড়ে
হাসি মুখে সকল কষ্ট বরণ করে দেশের মঙ্গলের তরে।

ঝড় বৃষ্টিতেও কাজ থেকে যায় না তাদের রুখা
তাদের কল্যাণেই দাঁড়িয়ে আছে অর্থনীতির চাকা।
চায় না তারা বড় বড় অট্টালিকা, চায় না কোন রাজপ্রসাদ
কাজ শেষে শান্তিতে একটু বিশ্রাম চায় যদি আসে অবসাদ।
চায় না তারা নবাবি হাল,হতে চায় না নবাব জাদা
এত ত্যাগের পরও কেন চাষা পায় না যথার্থ মর্যাদা?

তাদের কঠোর মেহনতেই সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে চলছে দেশ
চাষা বিহনে কি উন্নতি সম্ভব, করে দেখ গভীর আবেশ?
কৃষি দেশের অর্থনীতির প্রধান চালিকাশক্তি
তবে কেন কৃষক সমাজে অবহেলিত, পায় না সঠিক মূল্যায়ন?
কেমনে মিলবে তবে এ জাতির শুভ বুদ্ধির মুক্তি?

শিরস্ত্রাণ করেছে তারা, অবকাশ নেই একটুখানি বিশ্রামের৷
শরীরের দগ্ধ পোড়া বর্মকোষ থেকে রক্ত নিঃসৃত ঘাম মাটিতে একাকার।
লাঙলের ফলা বসিয়ে যতটা আঘাত করে মাটির বুকে
ততটাই যন্ত্রণা ওদের হাড়মাস, শিরা-উপশিরাসহ সর্বাঙ্গে
নিশিতে তিমিরে তন্দ্রা ছুটে যায়, বেদনায় পাশ ফেরে৷
তবুও ছোটে নগ্ন পায়ে সূর্যোদয়ের পূর্বেই হাল ধরে৷

বপন করে বীজ ফলায় সোনার ফসল
প্রকৃত মূল্যের আর স্বর্ণালী দিনের আশায়
যতদিন শ্বাস চলে,রয়ে যায় তাদের বাহুবল
তারা চায় না বিশ্রাম,তারা ডুবে থাকে শ্রম দরিয়ায়,

লেখকঃ জুবায়েদ মোস্তফা
শিক্ষার্থী, লোকপ্রশাসন বিভাগ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।


Share It
  • 54
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    54
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here