গুলিস্তান, শাহবাগ, মতিঝিলসহ রাজধানীর কয়েক জায়গায় বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় একটি কল রেকর্ড পাওয়ার কথা জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম ইউনিট প্রধান মো. মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, গতকাল (বৃহস্পতিবার, ১২ নভেম্বর) রাজধানীতে হঠাৎ বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় একটি কল রেকর্ড পেয়েছি আমরা। সেটি বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। যারা কথা বলেছেন তাদের পরিচয় জানতে কাজ করা হচ্ছে। তবে এই কল রেকর্ড মামলা প্রমাণের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ইভিডেন্স হিসেবে কাজ করবে। কল রেকর্ড আর আগুনের ঘটনার সঙ্গে কথোপকথনের মিল রয়েছে।

শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের একটি অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

মনিরুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) রাজধানীর বেশ কয়েকটি জায়গায় হঠাৎ বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনার সাথে ২০১৪-১৫ সালের ঘটনাগুলোর মিল রয়েছে। তবে কারা আগুন দিয়েছে তা নিয়ে তদন্ত করছে পুলিশ। ছয় বছর আগের ওই সময়ে আগুন দেওয়ার ঘটনাগুলোতে মানুষ যেমন আতঙ্কগ্রস্ত ছিল একইভাবে গতকালও হঠাৎ বাসে আগুনের ঘটনায় নগরবাসী আতঙ্কিত হয়েছে। এটি হওয়ারই কথা। পুলিশও হতবাক হয়েছে, হঠাৎ এতগুলো বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায়। আমরা কাজ করছি, যারা এসব ঘটনায় জড়িত তাদের খুঁজে বের করা হবে।

আগুন দেয়ার ঘটনায় বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা জড়িত থাকতে পারে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতীয় প্রেসক্লাব ও নয়াপল্টন এলাকাতেও বিএনপি মিছিল করেছে। এরপরই মূলত আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। তাই বিএনপির নেতাকর্মীরা জড়িত থাকতে পারে।

উল্লেখ্য, গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে অনিয়ম-কারচুপির অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর গুলিস্তান-পল্টন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদল।

এরপর গুলিস্তান, শাহবাগ, মতিঝিলসহ রাজধানীর কয়েক জায়গায় বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এরপর বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেন, ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং যুবদলের সাধারণ সম্পাদকসহ মোট ৪৬০ জনকে আসামি করে ১০টি মামলা করা হয়েছে। মামলাগুলোয় এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়েছে ২১ জনকে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here