বীরশ্রেষ্ঠ পরিবারের বিনামূল্যে টেলিফোন ও ইন্টারনেট সেবা

Share It
  • 52
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    52
    Shares

মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে যারা দেশের জন্য মরণ লড়াই করে জীবন উৎসর্গ করেছেন। তাদের মধ্যে শুধু বীরশ্রেষ্ঠ মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সদস্যদের জন্য বিটিসিএলের পক্ষ থেকে বিনামূলে

টেলিফোন ও ইন্টারনেট সেবা দেয়া হচ্ছে। গত পহেলা অক্টোবর থেকে এ প্রক্রিয়া চালু করা হয়েছে। প্রথমে বীরশ্রেষ্ঠ মুক্তিযোদ্ধা নূর মোহাম্মদ শেখের কন্যা মোছাম্মদ হাছিনা হকের যশোরস্থ নীলগঞ্জ (সাহাপাড়া) বাস ভবনে ফ্রি টেলিফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ দেয়া হয়েছে।

বিটিসিএল ইস্কাটন রোডস্থ প্রধান কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি বিটিসিএলের ১৮০তম বোর্ড সভায় বীরশ্রেষ্ঠদের পরিবারের সদস্যদের (স্ত্রী এবং সন্তান) জন্য টেলিফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ দেয়ার বিষয় নীতিমালা নীতিগতভাবে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। নীতিমালা অনুযায়ী বীরশ্রেষ্ঠদের পরিবারের সদস্যদের সংযোগ ফি ছাড়াই বিটিসিএলের একটি আবাসিক টেলিফোন অথবা টেলিফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ দেয়া হবে।

প্রতিমাসে ওই সংযোগের জন্য ভ্যাটসহ সর্বোচ্চ আটশত টাকা চার্জ মওকুফ সুবিধা দেয়া হবে (অতিরিক্ত বিল গ্রাহক কর্তৃক পরিশোধ যোগ্য)। প্রদত্ত এ সুবিধা অন্য কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে হস্তান্তরযোগ্য নয়। আর বৈদেশিক কলের ক্ষেত্রে চার্জ মওকুফ সুবিধা প্রযোজ্য নয়।

বিটিসিএলের সেবাভুক্ত এলাকায় নেটওয়ার্কের সম্ভাব্যতা সাপেক্ষে বিনামূলে সংযোগ দেয়া হবে। তবে বিটিসিএলের নিয়ম অনুযায়ী সম্মানিত গ্রাহক নিজ টেলিফোন সেট বা রাউডার বা মডেম সংগ্রহ করবেন। বীরশ্রেষ্ঠ পরিবারের অন্যান্যরা এ নীতিমালা অনুযায়ী সংযোগের আবেদন করতে পারবেন।

বিটিসিএলের একজন কর্মকর্তা বলেন, বীরশ্রেষ্ঠ পরিবারের একজন সদস্য সম্প্রতি যশোর বিটিসিএল অফিসে আবেদন করেন। ওই আবেদনটি নিয়ে বিটিসিএলের ইস্কাটনস্থ প্রধান কার্যালয়ে বোর্ড সভায় আলোচনা শেষে নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত হয়। এরই প্রেক্ষিতে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। বিটিসিএলের এ পদক্ষেপ প্রশংসনীয় উদ্যোগ বলেও অনেকেই মন্তব্য করেন। বিটিসিএলের এ ধরনের পদক্ষেপে সুনাম বাড়বে।

উল্লেথ্য বিটিসিএল কর্র্তপক্ষ গ্রাহক সংখ্যা ও সেবার মান বাড়াতে নানা পদক্ষেপ নেয়া শুরু করেছেন। আর গ্রাহকদের সুযোগ সুবিধা আরও বাড়বে। এজন্য বিটিসিএল কর্তৃপক্ষ উচ্চ পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে বিটিসিএলের বিভিন্ন অঞ্চলের কর্মকর্তারা নানা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন।

বিটিসিএল ফোনের পাশাপাশি উন্নত মানের ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছেন। সার্ভিস উন্নত করে গ্রাহকদের কাছে যেতে চাচ্ছেন। এখন থেকে কোন গ্রাহক আবেদন করলে দ্রুত ফোন সংযোগ দেয়া হবে। আর কোন টেলিফোন সংক্রান্ত কোন অভিযোগ পাইলে ব্যবস্থা নেয়া হয়। গ্রাহক বাড়াতে এবং আস্থা বৃদ্ধি করতে বিটিসিএল কর্তৃপক্ষ কাজ করছেন। এ জন্য টেলিসেবা নামে একটি অ্যাপস চালু করা হয়েছে। গেল বছর এ অ্যাপস চালু করা হয়। অ্যাপসের মাধ্যমে অভিযোগ করলে তার বিটিসিএলের এমডি পর্যন্ত জানেন। ফলে ত্রুটি দ্রুত সারানো সম্ভব।

বিটিসিএলের আধুনিক সুযোগ সুবিধা বাড়ানো হচ্ছে। ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। আগামী জানুয়ারি থেকে দেশের ২২টি জেলায় ইন্টারনেট সার্ভিসসহ অন্যান্য সুবিধা বাড়ানো হবে। পর্যায়ক্রমে এ সংখ্যা ৬৪ জেলা পর্যন্ত পৌঁছে দেয়া হবে। আর এখন রাজধানীর মগবাজারে নতুন করে নেটওয়ার্ক অপারেশন সেন্টার (এনওসি) চালু করা হচ্ছে। সেখানে বসে গ্রাহকদের কানেকশান ও অন্যান্য সমস্যা দেখা যাবে। একই সঙ্গে সমস্যা জানা যাবে এবং তার সমাধান করা হবে।


Share It
  • 52
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    52
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here