গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ১২ শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে এক আলোচনা সভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার এ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়া এম.পি বলেছেন- মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত্যাগ জাতি চিরদিন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। মুক্তিযোদ্ধারা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধ এবং বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে হবে।
আজ শনিবার উক্ত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আব্দুল মতিন বলেছেন- মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) কালীন সময়ে কোন মানুষই না খেয়ে থাকেনি। ডেপুটি স্পীকার এ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়া এম.পি’র প্রচেষ্টায় সাঘাটায় অনেক উন্নয়ন অব্যাহত রয়েছে।
সাঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নাছিরুল আলম স্বপনের সঞ্চালনায় উক্ত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন- গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আব্দুল মতিন, সাঘাটা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবু খায়ের।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- যুদ্ধকালীন কমান্ডার ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আলহাজ¦ সামছুল আলম, সাবেক জেলা ডেপুটি কমান্ডার গৌতম চন্দ্র মোদক, উপজেলা আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাজমুদ হুদা দুদু, সাঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ বেলাল হোসেন, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আবু মোঃ সুফিয়ান, মুক্তিযোদ্ধা আবু বক্কর সিদ্দিক, দেলোয়ার হোসেন, মাহাবুর রহমান মোহাব্বত, আজাহার আলী প্রমুখ। আলোচনা সভার পূর্বে সাঘাটা উপজেলা পরিষদ চত্বরে ১২ শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে পতাকা উত্তোলন এবং শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের এই দিনে (২৪ অক্টোবর) উপজেলার বোনারপাড়া ইউনিয়নের দলদলিয়া গ্রামে পাক হানাদার বাহিনীর সঙ্গে ৬ ঘন্টা ব্যাপী সম্মুখ যুদ্ধে শহীদ হন ১২ বীরমুক্তিযোদ্ধা। ওই দিন স্থানীয়দের উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধাদের সমাহিত করা হয় উক্ত দলদলিয়া গ্রামে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here