যশোরে ‘ওয়ান টাইম’ গ্লাস-প্লেট ও চায়ের কাপে সয়লাব : হুমকিতে জনস্বাস্থ্য

Share It
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    8
    Shares

জেমস আব্দুর রহিম রানা, যশোর : প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে যশোরের সর্বত্র  ওয়ান টাইম গ্লাস-প্লেট ও চায়ের কাপে সয়লাব হয়ে পড়েছে। ফলে হুমকির মুখে পড়েছে জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশ। পুরো বিষয়টি নিয়ে এখনো নিশ্চুপ আছে পরিবেশ অধিদপ্তর। ‘ওয়ান টাইম’ (প্লাস্টিক) চায়ের কাপ ব্যবহার বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন পরিবেশবাদীরা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, যশোরের শুধুমাত্র অভয়নগর উপজেলায়  ছোট-বড় প্রায় ৮ হাজার চায়ের দোকান আছে। এসব দোকানে প্রতিদিন প্রায় ১ লাখ কাপ চা বিক্রি হয়, যার ৮০ শতাংশ দোকানী প্লাস্টিকের ‘ওয়ান টাইম’ চায়ের কাপ ব্যবহার করে। এসব ব্যবহৃত কাপ ফেলে দেয়া হয় যত্রতত্র। অপচনশীল এসব কাপ এখন পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকির কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন পরিবেশ বাদীরা।
এছাড়া শহর এলাকায় জলাবদ্ধতার কারণে হিসেবে প্লাস্টিকের এ চায়ের কাপকে দোষারোপ করা হচ্ছে।  একইসঙ্গে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এই ওয়ান টাইম প্লেট-গ্লাসের ব্যবহার হরহামেশা হয়ে পড়েছে। ঝামেলামুক্ত এই গ্লাস-প্লেট ব্যবহার করে পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য যে হুমকিতে পড়ছে, সে সম্পর্কে সন্দিহান স্বয়ং ব্যাবহারকারীরা।
চায়ের দোকানীরা জানান, আমরা প্লাস্টিকের ‘ওয়ান টাইম’ চায়ের কাপ বাজার থেকে ক্রয় করতে বাধ্য হচ্ছি ক্রেতাদের চাহিদা ও স্থানীয় পুলিশের চাপে। অভয়নগর উপজেলার পায়রা বাজারের চায়ের দোকানী আব্দুর রহমান, কলিম উদ্দিন, আনোয়ার হোসেন জানান, তাদের চায়ের দোকানে প্লাস্টিকের ‘ওয়ান টাইম’ চায়ের কাপ না থাকায় স্থানীয় ভবদহ পুলিশ ক্যাম্প তাদের কাঁচের কাপ ভেঙ্গে দেয়। তারা বাধ্য হয়ে ‘ওয়ান টাইম’ কাপ ব্যবহার করছেন বলে জানান। ব্যবহারের পর ওই কাপ যত্রতত্র ফেলার বিষয় জানতে চাইলে তারা বিষয়টি এড়িয়ে যান।
নওয়াপাড়া বাজারের প্লাস্টিক পণ্যের ব্যবসায়ী মঙ্গল কুমার জানান, নওয়াপাড়া বাজারে প্রায় ২০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘ওয়ান টাইম’ প্লাস্টিক সামগ্রী বিক্রি করে। প্রতিদিন তারা প্রায় ১ লাখ ‘ওয়ান টাইম’ প্লাস্টিকের চায়ের কাপ বিক্রি করছে। প্রকারভেদে এসব চায়ের কাপ প্রতি পিস ৭০ পয়সা থেকে এক টাকা দরে পাইকারী বিক্রি করা হয়।
পরিবেশবাদী সংগঠনের সদস্য এটি এম কামারুল ইসলাম জানান, প্লাস্টিক মানবদেহের জন্য যেমন ক্ষতিকারক, তেমনি পরিবেশের জন্য মারাত্মক হুমকি। অবিলম্বে এসব অপচনশীল প্লাস্টিক সামগ্রী ব্যবহার বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা জরুরী।
‘ওয়ান টাইম’ চায়ের কাপের ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এস এম মাহামুদুর রহমান রিজভী বলেন, প্লাস্টিক কাপে চা বা গরম পানি পান করলে হার্ট, কিডনী, লিভারসহ ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হয়। এসব পণ্য তৈরিতে ব্যবহৃত হয় পলিমার নামক ক্ষতিকর কেমিক্যাল, যা মানবদেহে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে এবং পরিবেশের জন্য ভয়াবহ হুমকি হিসেবে দেখা দেয়। এসব প্লাস্টিকের জন্ম হয় কিন্তু মৃত্যু হয় না। প্লাস্টিকের পরিবর্তে মাটির তৈরি অথবা কাঁচের কাপ ব্যবহার করা উত্তম।
অভয়নগর উপজেলা সহককারী কমিশনার (ভূমি) কেএম রফিকুল ইসলাম জানান, পলি ইথায়লিন ও পলি প্রোপাইলিন বা উভয়ের কোন যৌগ মিশ্রণে তৈরি প্লাস্টিক পণ্য ব্যবহার করা বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষন আইন ১৯৯৫ (৬) এর ‘ক’ ধারা লংঘন দায়ে দুই বছরের জেল বা দুই লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হতে পারে। প্লাস্টিক ব্যবহার রোধে ব্যাপক জনসচেতনা সৃষ্টি করতে হবে। প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করা হবে।
এ বিষয়ে কথা বলতে গতকাল দুপুরে যশোর পরিবশে অধিদপ্তরের ০৪২১৬০৭৭৪ টেলিফোনে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কেউ ফোন রিসিভ করেন নি।
  • সাংবাদিক নিয়োগ : দৈনিক মুক্ত আলো

  • Application Form - আবেদন ফরমটি যথাযথভাবে পূরণ করে নিচের সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন। আবেদন করার আগে নিচে দেওয়া তথ্য গুলি মনোযোগ সহকারে পড়ে নিন।০১৮২৯৪২৪৭৭১ বিকাশ পার্সোনাল, এই নাম্বারে তিনশত টাকা (আবেদন ফি অফেরত যোগ্য) সেন্ড মানি করে নিচে ট্রানজেকশন আইডি উল্লেখ করুন। (অন্যথায় আপনার আবেদন গৃহীত হবে না,তাই আবেদন করার আগে অবশ্যই সেন্ড মানি করে নিবেন)
  • নির্দেশনার টি ভালভাবে পড়ুন

    সাংবাদিক নিয়োগ : দৈনিক মুক্ত আলো জেলা-উপজেলা ও কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সাংবাদিক/প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে।সারাদেশ থেকে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার সন্তান / নাতী-নাতনীদের ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রকৃত নাগরিকদের আবেদন করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হল – আগ্রহীরা আগামী (৩০/০৯/২০২০ইং) এর মধ্যে আবেদন জমা দিন জমা দিনঃ ০১৮২৯৪২৪৭৭১ বিকাশ পার্সোনাল, এই নাম্বারে তিনশত টাকা (আবেদন ফি অফেরত যোগ্য) সেন্ড মানি করে নিচে ট্রানজেকশন আইডি উল্লেখ করেন। (অন্যথায় আপনার আবেদন গৃহীত হবে না,তাই আবেদন করার আগে অবশ্যই সেন্ড মানি করে নিবেন) সবার আগে দেশ ও বিদেশের সব খবরের পিছনের খবর জানতে ও জানাতে দেশের প্রতিটি জেলায় সংবাদ প্রতিনিধি,থানা প্রতিনিধি, বিশেষ প্রতিনিধি,বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি,ব্যুরো চিফ,ও গুরুত্বপূর্ণ বিটে স্টাফ রিপোর্টার,এবং স্কুল,কলেজ,বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পুরুষ/মহিলা সেচ্ছাসেবী শিক্ষানবিশ সাংবাদিক নিয়োগ করা হবে । প্রর্থীর যোগ্যতা: # শিক্ষাগত যোগ্যতা কমপক্ষে এইচ,এস,সি.অথবা সমমান হতে হবে। # প্রার্থীর নিজেস্ব ল্যাপটপ/ কম্পিউটার থাকলে ( অগ্রাধিকার দেওয়া হবে) # এম,এস,ওয়ার্ডে বাংলায় টাইপিং জানা থাকলে( অগ্রাধিকার দেওয়া হবে) # ক্যামেরা থাকালে( অগ্রাধিকার দেওয়া হবে) # কোন কপি রাইট সংবাদ প্রেরন করা যাবে না। # প্রেরিত সংবাদের সহিত সংবাদ সর্ম্পকিত ছবি/ভিডিও পাঠানোর চেষ্টা করতে হবে।#অভিজ্ঞ প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। #প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও নাতী-নাতনীদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র: পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি আপলোড করুন। জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি আপলোড করুন। শিক্ষার্থীদের জন্য কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইডি কার্ডের ছবি আপলোড করুন। সর্বশেষ শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেটের ছবি আপলোড করুন। । অভিজ্ঞতার ক্ষেত্রে: অভিজ্ঞতা সনদের ছবি আপলোড করুন। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যের ক্ষেত্রে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সকল কাগজপত্র ছবি আপলোড করুন। নির্বাচিত সংবাদ কর্মীদেরকে যোগ্যতা অনুযায়ী বিশেষ প্রক্রিয়ায় সম্মানী প্রদান করবে । যোগাযোগ: Phone: 01829424771 E-mail: doinikmuktoalo.editor@gmail.com Facebook: https://www.facebook.com/doinikmuktoalo.bd
  • আবেদন ফরম - apply now

  •  

Share It
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    8
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here