রন্ধে বসবাস-০১ : রিয়াজ উদ্দিন শাওন

Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সেই প্রথম দিককার কথা মনে আছে? তোমায় বলবো বলে সারারাত না ঘুমিয়ে এপাশ ওপাশ করে কথা সাজাতাম! রাত ভর বুকে হিম ঠান্ডা শিতলতায় হাত পা উত্তেজনায় কুকড়ে আসতো। ঘুম থেকে উঠতে মায়ের ডেকে দিত হত না,ভোর দেখতাম আর রাতে সাজিয়ে রাখা কথা গুলো রিভিশন দিতাম!

তোমার চোখে চোখ পড়তেই শরীরে কাঁপুনি অনুভব করতাম! কি তীক্ষ্ণ তোমার চাহুনি, বুকে আচড় কেটে দিত।আর সাথে ভুলে যেতাম নিজের পরিচর ও, আর সাজিয়ে রাখা কথা তো দূরে থাক! স্কুলের ইউনিফর্মে একটা মায়া মাখা ব্যাপার আছে।

এনুয়াল স্পোর্টস এর সময় দিসপ্লের জন্য কিছু গান সাউন্ড বক্সে বাজানো হত না! “ফাগুনেরও মোহনায়,মন মাতানো মহুয়ায়….”এই টাইপ গান গুলোতে তোমার হাল্কা কোমর দুলানো নাচ দেখতে প্যারেড বাদ দিয়ে ওই আমগাছের পিছে দাঁড়িয়ে থাকতাম! তোমার মুচকি হাসি যেন এক জীবনের চেয়ে বেশি মূল্যবান লাগতো।

আরশি পিছন ডেকে বললো- :কি করছো? :চা খাচ্ছি,আর ডায়েরি তে কলম বুলাচ্ছি। :ও,তাহলে তো আমার এখানে আসা ঠিক হবে না।

:এভাবে বলো না,তাহলে নিজেকে অপরাধী মনে হয়।

:তোমার ডায়েরি তো কারো ছোঁয়া পর্যন্ত নিষেধ,এমন কি আমিও?

:আমি তো বলেছি,একদিন নিশ্চই পড়বে,আমি নিজে তোমার হাতে তুলে দেব পড়বার জন্য।

:কবে? :যে দিন আর আমার ডায়রি পড়ার জন্য তোমার এত আকর্ষণ থাকবে না! কথাটা বলেই সজল হেসে উঠলো,আর আরশির মুখের দিকে তাকিয়ে ওর অভিমান আর বিরক্তিতে ভরা মায়াবী মুখটা দেখছিলো। আরশিকে এভাবে দেখতে ওর প্রচন্ড ভাল লাগে।

আরশিকে সে এর আগেও কথাটা অনেকবার বলেছে। ডায়েরীতে যাকে নিয়ে লেখা সে আরশি হতে পারে,কিন্তু আরশি না হওয়ার সম্ভাবনা ফেলে দেওয়ার মত না!


Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

3 COMMENTS

    • Kobi hoye geli☺☺ suvo kamona roilo onk.😊
      Next part taratari porte chai.
      Golper soro ra Vlo hoice onk. Keep it up..gd luck..

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here