রাষ্ট্রের কাছে ন্যায় বিচার না পাওয়ার আক্ষেপ মৃত্যু, গার্ড অব অনার বয়কট

Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রাষ্ট্রের কাছে ন্যায় বিচার না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন এক বীর মুক্তিযোদ্ধা। মৃত্যুর আগে তার অছিয়ত অনুযায়ী সরকার কর্তৃক দেওয়া বিশেষ রাষ্ট্রীয় মর্যাদা গার্ড অব অনার বয়কট করে ওই মুক্তিযোদ্ধার পরিবার। যদিও পরে সকলের অনুরোধে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে তার পরিবার।

ঘটনাটি ঘটেছে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামে

জানা যায়, বুধবার দিবাগত রাতে আলীপুর গ্রামের বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান হোসেন (৬৮) তার নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। পরিবারের
সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় আলীপুর বাজারে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজার নামাজের আনুষ্ঠানিকতার আগে দোয়ারা থানা পুলিশ কর্তৃক মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা গার্ড অব অনার প্রদানের প্রস্তুতি নেওয়া হলে এতে বাধা দেন তার পরিবারের সদস্যরা। এ সময় মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন তার ছোট ভাই মুহম্মদ মশিউর রহমান মাস্টার, জ্যেষ্ঠ সন্তান শাহাদাত হোসেন মাসুম প্রমুখ।

এ সময় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হয়েও শাহজাহান হোসেন রাষ্ট্রের কাছে ন্যায় বিচার পাননি। তার ৫ সন্তানের মধ্যে জ্যেষ্ঠ সন্তান  শাহাদাত হোসেন মাসুমকে ২০১০ সালের ২২ জানুয়ারি পিতার সনদপত্রের বলে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় পুলিশের কনস্টেবল পদে নিয়োগ প্রদান করা হয়। কিন্তু প্রশিক্ষণ শেষে চার বছর চাকরি করার পর ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা সনদের অভিযোগ এনে ২০১৪ সালের ২৪ মার্চ মাসুমকে চাকরি হতে অপসারণ করা হয়।

এরপর থেকে এ বিষয় নিয়ে আইনি লড়াই চালিয়ে আসলেও ন্যায় বিচার পাননি মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানের পরিবার। উপরন্তু ন্যায় বিচারের দাবিতে
আইজিপি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন জায়গায় ধর্ণা দিলেও দায়সারা আশ্বাস ছাড়া কিছুই মিলেনি।’

তাদের দাবি, ‘প্রকৃত মু্ক্তিযোদ্ধার সন্তানের সনদ দাখিল সত্ত্বেও ছেলের চাকরিচ্যুতের ঘটনায় মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন মু্ক্তিযোদ্ধা শাহজাহান। আমৃত্যু ছেলের চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার আকুতি জানিয়েছিলেন তিনি। ছেলের চাকরিচ্যুতের ন্যায় বিচার না পাওয়ায় তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আক্ষেপ প্রকাশ করে পরিবারের নিকট রাষ্ট্র কর্তৃক বিশেষ রাষ্ট্রীয় মর্যাদা বয়কটসহ মুক্তিযুদ্ধের সম্মানি ভাতা ফিরিয়ে
নেওয়ার অছিয়ত করে যান তিনি।

জানাজার আগ মুহূর্তে মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানের পরিবার কর্তৃক গার্ড অব অনার বর্জন করার সিদ্ধান্ত জানানো হলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা
হয়। এ সময় সরকারের নিকট মরহুম মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানের সন্তানের চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হালিম

বীরপ্রতীক, মুক্তিযোদ্ধো আব্দুল মজিদ বীরপ্রতীক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাহ জাহান মাস্টার, মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ূন আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ার
হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিক মিয়া প্রমুখ।

তারা বলেন, শাহজাহান হোসেন আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধদিনের রনাঙ্গনের সাথী। আমরা এক সাথে যুদ্ধ করেছি। রাষ্ট্রীয় মর্যাদা যদি আজ তাকে না দেওয়া
হয় তবে আগামীতে দোয়ারাবাজার উপজেলার কোনো মুক্তিযোদ্ধা রাষ্ট্রীয় মর্যাদা গ্রহণ করবে না।

পরে জানাজায় উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসীর অনুরোধে মুক্তিযোদ্ধা শাহ জাহানের পরিবার রাষ্ট্রীয় গ্রহণ করতে সম্মত হয়। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় অনুষ্ঠিত হয় মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানের জানাজার নামাজ। এ সময় বিশিষ্টজনদের
মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দোয়ারাবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ফরিদ আহমদ তারেক, লক্ষীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আমিরুল হক, বোগলা ইউপি চেয়ারম্যান
আরিফুল ইসলাম, সুরমা ইউপি চেয়ারম্যান খন্দকার মামুনূর রশীদ, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রহিম প্রমুখসহ অনেকে।

মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে দোয়ারা থানার এসআই আরিফ রব্বানী বলেন,  ‘আমরা স্যালুট জানাতে গিয়েছিলাম। এ সময় সদ্য প্রয়াত
মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানের জ্যেষ্ঠ সন্তানের চাকরিচ্যুত হওয়ার ঘটনায় তার পরিবারের সদস্যসহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং তার সন্তানের চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানান।


Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

1 COMMENT

  1. যে রাষ্টের জন্যই আর যে মানুষের জন্যই জীবন উৎস্বর্গ করে যিনি যুদ্ধজয় করেছেন তিনি জীবিত থাকতে যদি ন্যায় বিচার না পান তবে মৃত্যুর পরে লোক দেখানো গার্ড অফ অনারের কি দরকার?
    তিনি এটাই মনে করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here