৬০ বছরের পুরনো সরকারি রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে মজিদ আকন্দ নামের এক প্রভাবশালী

Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সীমানা নিয়ে বিরোধে বড়াইগ্রামে দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্তা নির্মাণ ও চলাচল বন্ধ, দুর্ভোগে জনগ।

নাটোরের বড়াইগ্রামে রাস্তার প্রকৃত সীমানা নিয়ে বিরোধে পাল্টাপাল্টি মামলা দায়েরের ফলে দীর্ঘদিন যাবৎ পাকাকরণ কাজ বন্ধ রয়েছে। ফলে বক্স কেটে বালি ফেলে রাখা রাস্তায় হাঁটাচলাসহ স্বাভাবিক যান চলাচল বন্ধ থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন আশেপাশের গ্রামের প্রায় ২৫ হাজার মানুষ।

জানা যায়, উপজেলার জোনাইল-রাজাপুর সড়কের কুশমাইল নাসির মোড় থেকে সংগ্রামপুরগামী একটি রাস্তা রয়েছে। গত ১৫ সেপ্টেম্বর উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ রাস্তাটি পাকা করার কাজ শুরু করে।

কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল মজিদ আকন্দ নাসির মোড় এলাকায় রাস্তার শুরুতে কুশমাইল মৌজার ১৪০ হালদাগে প্রায় চার শতক জমি নিজের বলে দাবী করেন।একালাবাসীর কাছ থেকে যানা যায় এপর্যন্ত যতগুলো মাপ হয়েছে সব কিছু একতরফা ডাঃ মজিদ হেরফের করে নিজের পক্ষে নিয়ে এসেছে,একটি মাপ জরিপও সঠিক হয়নি ।

এছারা মাপ জরিপে পরা রাস্তার জায়গা আনোয়ার হোসেন ও আমজাদ হোসেনের দখলে রয়েছে ৷ তাদের মতে ডাঃ মজিদ ক্ষমতাবলে সঠিক টাকে ভুল প্রমাণ করছেন, ডাঃ মজিদ সাহেবের জমি ১১ শতক তার জমি পূর্ন হলে বাকিটার তো কোন প্রয়োজন ই নেই ৷ রেকর্ড এর জমি ১১ শতক মাপ দিয়ে তিনি বানাচ্ছেন ২২ শতক ৷ এটা ক্ষমতার অপব্যবহার ৷

এদিকে ক্ষুব্ধ আব্দুল মজিদ আদালতে প্রকৃত জায়গা দিয়ে রাস্তা নির্মাণের আবেদন জানিয়ে উপজেলা প্রকৌশলীকে বিবাদী করে মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে, মাপে রাস্তার জায়গা দখলে থাকা আনোয়ার হোসেন দখল না ছেড়ে জমিটি নিজের দাবী করে আদালতে পৃথক মামলা দায়ের করেন।

এভাবে পাল্টাপাল্টি মামলার ফলে রাস্তার নির্মাণ কাজ বর্তমানে বন্ধ রয়েছে। ফলে এ পথে স্বাভাবিক হাঁটাচলাসহ যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সংগ্রামপুরসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের প্রায় ২৫ হাজার মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ভ্যানচালক জানান, আমরা ভ্যান চালিয়ে কোন রকমে সংসার চালাই। কিন্তু জমি নিয়ে বিরোধে রাস্তার কাজ বন্ধ থাকায় ভ্যান চলাচলে চরম বিপাকে পড়েছি। মজিদ বেয়াইনি ভাবে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে, এখন আমরা চলাচলও করতে পারছি না,দ্রুত সঠিক জায়গা চিহ্নিত করে রাস্তা নির্মাণ কাজ শেষ করার দাবী জানাচ্ছি।

কুশমাইল গ্রামের ব্যবসায়ী মনিরুজ্জামান বাবু জানান, আগে ভ্যান-ভুটভুটিতে করে বাড়িতে মালপত্র আনা নেয়া করতাম। কিন্তু রাস্তা কেটে বালু ফেলে রেখে কাজ বন্ধ থাকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে মালপত্র আনা নেয়ায় চরম বিপাকে পড়েছি।

উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুর রহিম জনসাধারণের ভোগান্তির বিষয়টি স্বীকার করে জানান, আদালতের নিষেধাজ্ঞার কারণে রাস্তার কাজ বন্ধ রয়েছে। তবে কারো ব্যাক্তিগত জায়গা দিয়ে নয়, রাস্তার জায়গা দিয়েই রাস্তা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগীদের একজন বলেন: জোর যার মুল্লুক তার এমন কথা আমরা ছোট থেকেই শুনে আসছি, বর্তমানে আমরা এমন এক সমাজে বসবাস করছি যেখানে প্রতিষ্ট কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির কাছে আমাদের সমাজ জিম্মি থাকে,তাদের ইচ্ছেমতো তারা যা খুশি তাই করতে পারে, তাদের কথার উপর কারো কিছু বলার থাকে না কারণ প্রশাশন,স্থানীয় নেতাগন ব্যক্তিগত স্বার্থে তাদের পক্ষেই কথাবলে,আমাদের সমাজ ব্যবস্তা যদি এমন হয় তাহলে সাধারণ জনগন কার কাছে যাবে সুষ্ট বিচারের আশায় ৷

ডাঃ মজিদ আকন্দ ক্ষমতার বলে সরকারি রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে, ফলাফল সাধারন জনগনের চলাচলের পথ বন্ধ,বিষয়টা লজ্জাজনক, কারো কিছু বলার ক্ষমতা নেই কেননা সবকিছুই তাদের দখলে, সরকারি রাস্তাটিকে নিজের বলে চালিয়ে দিচ্ছেন এই ব্যবসায়ী

তার ক্ষমতার বলে ৷ প্রায় ২ বছর আগেও তিনি এই রাস্তাটিকে কেটে ২০ ফুট পিছিয়ে দিয়েছে তার মতে রাস্তাটি তার সেই সময় জমির মালিকের সাথে ঝামেলা হয়,বর্তমান এই রাস্তাটি যার জমির উপর তিনি এটি মেনে নেন জনগনের ভালোর জন্য প্রায় পাঁচটি গ্রামের মানুষ প্রতিদিন রাস্তাদিয়ে চলাচল করে,এখন রাস্তাটি যখন পাকা হতে চলেছে ডাঃ মজিদ আবার এই রাস্তাটিকে নিজের বলে দাবী করছেন,রাস্তাটি নিয়ে সরকারি কোর্টে মামলা চলছে,মামলা চলা সর্তেও তিনি নিজ ক্ষমতার বলে ৬০ বছরের পুরোনো রাস্তাটিকে বন্ধ করে দেন, রাস্তাটির পাশে দোকানপাট ও বসতবাটি স্হাপিত হয়,এসব বসতবাটি ও দোকানপাট ঊচ্ছেদ সম্পূর্ণ বেআইনি ৷ ধিক্কার জানাই আমাদের এই সমাজব্যবস্তাকে ৷

কিছু স্বার্থলোভী মানুষের কারনেই আমাদের জননেএীর এতো দুর্নাম হয়,আমাদের দেশটাকে ধংশের দিকে নিয়ে যাচ্ছে আমাদের আশেপাশের কিছু স্বার্থলোভী মানুষ, সরকারের প্রতি ভরসা উঠে যাচ্ছে জনগনের, আমাদের উচিত আমাদের

সরকারের প্রতি জনগনের ভরসা তৈরি করা,সরকারের প্রতি ভালোবাসা ফিরিয়ে আনা, এর জন্য আমাদের সবাইকে একজোট হয়ে এসকল লোভী মানুষের বিপক্ষে রুখে দারাতে হবে ৷

আসুন আমরা সবাই মিলে সমাজটাকে বাচিয়ে নেই,আমরা কি পারিনা আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে একটা সুন্দর সমাজ উপহার দিতে ৷


Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here