শখের ডিএসএলআর কিনতে বাসার গয়না চুরি, সন্দেহ হওয়ায় থানায় কল দোকানির

Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোহাম্মদ জিপন উদ্দিন, চট্টগ্রাম : অরিত্র দাশের একটি ডিজিটাল ক্যামেরা ( ডিএসএলআর) কেনার খুব শখ। বন্ধুদের কারো কারো কাছে এই ধরণের ক্যামেরা থাকলেও তার কাছে না থাকায় এক ধরণের হীনমন্যতা কাজ করছিল! কিন্তু কেনার টাকা পাবে কোথায়? ভাবতে ভাবতে নিজের বাসায় ভাইয়ের বিয়ের জন্য কেনা গয়নার কথা মনে হল। ভাইয়ের স্বর্ণালংকার বিক্রি করে ক্যামেরা কেনার বিষয়ে সহযোগিতা নিল বন্ধু সৌরভ পালের। দু’জনে মিলে গয়নাগুলো নিয়ে গেলেন চট্টগ্রাম নগরীর হাজারী গলির একটি স্বর্ণের দোকানে।সেখানে   ক্রেতা অর্থাৎ দোকানদার পুলক বাবুর  সন্দেহ হয় তাদের কথাবার্তায়। তিনি আড়ালে কোতোয়ালি থানায় কল দিলেন।
তারপর নানা খুঁটিনাটি প্রশ্ন করে ব্যস্ত রাখলেন দুই বিক্রেতাদের।চট্টগ্রাম এই ফাঁকে ঘটনাস্থলে হাজির হয় পুলিশ।কোতোয়ালি থানার এস আই সজল দাশ সোমবার  (১৫ জুন) সন্ধ্যায় ঘটা এই ঘটনার বর্ণনা দিয়ে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে অরিত্রকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানায়,মায়ের অজান্তে নিজে লকার খুলে চুরি করে ভাইয়ের বিয়ের গয়না। তারপরই বিক্রির জন্য নিয়ে আসে দোকানে। পুলিশ ওই দোকান থেকে অরিত্র ও তার বন্ধুকে থানায় নিয়ে আসে। ডাকা হয় তাদের পরিবারকেও।
পরে মুচলেকা দিয়ে অভিভাবকদের জিম্মায় তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়।এস আই সজল দাশ বলেন, দোকানি যদি  আমাদেরকে না জানাত তাহলে অরিত্রর পরিবারে এটিকে হয়তো চুরি হিসেবেই মেনে নিতেন। হয়তো পরিবার থানায় এসে চুরি মামলা করত। তখন হয়তো বিনা দোষে চুরির দায়ে দোকানিই আটক হত। কিন্ত ক্রেতার দায়িত্বশীল ভূমিকার কারণে সত্যি ঘটনাটি প্রকাশ পেল। ক্ষোভ প্রকাশ করে সজল দাশ বলেন, শখ মেটাতে গিয়ে ভাইয়ের বিয়ের জন্য কেনা গয়নায় হাত দিতে হবে- এটা আবার কেমন শখ?জানা গেছে,  অরিত্র চট্টগ্রাম নগরীর সাব-এরিয়ার ঘাটফরহাবেগ এলাকার বাসিন্দা। তার বাবা রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন একটি ব্যাংকের কর্মকর্তা। বড় ভাইয়ের বিয়ের জন্য কয়েকদিন আগে এসব স্বর্ণালংকার কেনা হয়েছিল।

Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here