১৯৭৫ সাল থেকে ১৯৯৫,কোন সন্ধানই ছিল না,তারামন বিবির

Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

১৯৭৫ সাল থেকে ১৯৯৫ সাল অব্ধি মহীয়সী এই বীর নারীর মুক্তিযোদ্ধা পরিচয় দূর, তার কোন সন্ধানই ছিল না। কেন ছিল না, বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের সেই লজ্জার ইতিহাসে নাইবা গেলাম। ১৯৯৫ সালের দিকে ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ও গবেষক বিমল কান্তি দে প্রথম তার সন্ধান পান পরবর্তীতে তাকে বীর প্রতীকে ভূষিত করা হয়। শেষ বয়সে অনেক আপেক্ষ নিয়েই হইতো চলে গেলেন, জীবণের বেশির ভাগ সময় আর্থিকভাবে অনেক কষ্টের মুখে পড়েছেন। এক সাক্ষাতকারে এই বীর নারী আক্ষেপ করে বলেছিলেন , “নেতারা সব এসে ছবি তুলে চলে যায় , আমি কেমন আছি এটা কেউ জানতে চাই না “। অথচ মুক্তিযুদ্ধের এই দেশে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতাকারীর গাড়িতে পত পত করে লাল-সবুজ পতাকা উড়ে, কোটি কোটি টাকার মালিক তারা। এখনো তারা নমিনেশন পাই, তাদের পরিবার এম.পি, মন্ত্রী হয় । সত্য বলতে তারামন বিবিদের জন্য কিছু চাওয়ার অধিকার কারো নেই, তাহলে হইতো প্রশ্ন ছুড়ে দিবে , সে কি চাওয়া-পাওয়ার জন্য যুদ্ধে গেছিলো, এমনকি ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার তকমাও লাগতে পারে ???!তাই, সেই প্রসংগেও নাই বা গেলাম। যারা একটু খোজ রাখেন তারা হইতো জানেন, প্রতিনিয়ত এই রক্তিম মাটির মায়া ত্যাগ করে পরকালের বাসিন্দা হচ্ছেন দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানগণ। কিছুদিন আগেও একজন গেরিলা বীর মুক্তিযোদ্ধা ইন্তেকাল করেছেন। আগামী দশ বছর পর হইতো মুক্তিযুদ্ধের এই দেশে আর কোন জীবিত মুক্তিযোদ্ধা থাকবে না। দেশে হইতো হাজার ইঞ্জিনিয়ার, বিজ্ঞানী, গবেষক, নোবেলজয়ী জন্ম নেবে অহরহ কিন্তু বীর মুক্তিযোদ্ধা নয়।

১১ নং সেক্টর কমান্ডার আবু তাহেরের আন্ডারে মুক্তিযোদ্ধা মুহিব হাবিলদার তারামন বিবিকে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়ার জন্য উৎসাহিত করেন। পরবর্তিতে তারামনের সাহস ও শক্তির পরিচয় পেয়ে মুহিব হাবিলদার তাকে অস্ত্র চালনা শেখান। বীর দর্পে তিনি বিভিন্ন অপারেশনে দেশমাতার মুক্তির জন্য জীবণ বাজি রেখে সমূরে-সম্মুখে অনেক রক্তক্ষয়ী অপারেশনে অংশগ্রহণ করেছিলেন । মুক্তিযুদ্ধের সময় এই বীরের বয়স ছিলো মাত্র ১৩ কিংবা ১৪ বছর।
ভাবা যায়, একজন ১৩/১৪ বছরের কিশোরী গ্রেনেড ছুড়ে মারছে পাক ক্যাম্পে, যুদ্ধের সবচেয়ে কঠিণ অস্ত্র গুপ্তচরবৃত্তি করছে পাক ক্যাম্পে। এক সময় পাক সেনাদের ত্রাসে পরিণত হয়েছিলেন এই ড়। সেই তারামন বিবিকে যথার্থ সম্মান দিতে এ জাতির সময় লেগেছে দীর্ঘ ২৩ টা বছর।

আজ বিজয় মাসের শুরু …………

বিনম্র শ্রদ্ধ ও ভালবাসা হে মহীয়সী


Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here