ঠাকুরগাঁওয়ে আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষের আশঙ্কায় ১৪৪ ধারা জারি

আওয়ামী লীগের দুগ্রুপ

ঠাকুরগাঁওয়ে আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষের আশঙ্কায় ১৪৪ ধারা জারি করেছেন প্রশাসন। বুধবার সকাল ১০টা থেকে আগামী ৯ নভেম্বর ১০টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি বলবৎ থাকবে।

পুলিশ জানায়, সকাল ১১টায় হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের চাপদা বাজারে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সভাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুটি গ্রুপ সকাল থেকে এলাকার বিভিন্নস্থানে অবস্থান নেয়। যা সংঘর্ষে রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়। সংঘর্ষ এড়াতেই হরিপুর উপজেলা প্রশাসন চাপদা বাজার এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা জানান, কিছু দিন আগে কমিটির অনুমোদন ছাড়াই নতুন করে সদস্য অর্ন্তভুক্ত করায় এ ধরনের দ্বন্দ্ব লেগেই আছে। শুধু ইউনিয়ন আওয়ামী লীগে নয় উপজেলা আওয়ামী লীগের চিত্র একই রকম। আর এ দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করেছে আওয়ামী লীগের কিছু সুবিধাবাদি নেতা। যা আমরা কখনই কাম্য করি না। আর এ কারণেই এ অবস্থার সৃস্টি হয়েছে।

বকুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার ও বহরমপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম জানান, বর্ধিত সভা হবে কাদের নিয়ে। যদি ত্যাগী নেতারা বাদ পরে তাহলে কোন ভাবেই বর্ধিত সভা হতে দেয়া হবে না। দীর্ঘ দিন ধরে যারা আওয়ামী লীগের হাল ধরে আছে তাদের বাদ দিয়ে বর্ধিত সভার আয়োজন করায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ কৃষক লীগের নতুন সভাপতি সমীর, সাধারণ সম্পাদক কুলসুম

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অধিকাংশ সদস্যকে বাদ দিয়ে মনগড়া ভাবে একপক্ষ বর্ধিত সভার আয়োজন করে। আর বর্ধিত সভা সফল করতে একপক্ষের লোকজন রাত থেকে লাঠিসোঠা নিয়ে অবস্থান করায় একজনকে রাতেই একজনকে আটক করে পুলিশ। আমরা চাই সুষ্ঠু পরিবেশের মধ্য দিয়ে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সকল কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হোক। তা না হলে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিটি সভায় এ ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে। এমন অবস্থা কেউ মেনে নিতে পারবে না।

হরিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল করিম জানান, আওয়ামী লীগের সভায় সংঘর্ষের আশঙ্কা রয়েছে। পরিবেশ পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আজ সকাল ১০টা থেকে আগামী ৯ নভেম্বর পর্যন্ত বকুয়া ইউনিয়নের চাপদা বাজার এলায়কায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

ফেইসবুকে নিউজ পেতে এখানে ক্লিক করুন। 

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here