বরিশালের বাকেরগঞ্জে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি ও জলোচ্ছ্বাসে নিন্ম অঞ্চল প্লাবিত

বরিশাল প্রতিনিধি: সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী মধ্যে রাতে সুন্দরবন এলাকায় বুলবুলের তান্ডব শেষে সকালে সতর্কতা শিথিল করলে অনেকে সাইক্লোন শেল্টার ছেড়ে বাড়িতে ফিরে আসার পরে শুরু হয়, প্রচন্ড ঝড়ো হাওয়া ও জলোচ্ছ্বাসের তান্ডব। সকাল থেকে হালকা ও মাঝারি বৃষ্টি দুপুর ১১ টার দিকে ভারী বৃষ্টি ও একইসাথে বাতাসের তীব্রতা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে।

টানা ২ ঘন্টা সময় স্হায়ী এ ঝড়ের তান্ডবে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ব্যপাক ক্ষয়ক্ষতির সংবাদ পাওয়া গেছে, বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা সহ কাঁচা পাকা অনেক বাড়ি ঘর গাছপালা লন্ডভন্ড হয়ে যার। রাত ১২ টা থেকে বিদ্যুৎ বন্ধ ছিলো, গাছপালা উপড়ে বিদ্যুৎ ব্যবস্হায় ব্যপক ক্ষতি হয়েছে, একইসাথে জলোচ্ছ্বাসে নিন্ম অঞ্চল প্লাবিত হয়ে কয়েক হাজার মানুষ গৃহবন্দী।

গাছ উপরে অনেক কাঁচা ঘর লন্ডভন্ড সহ ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে যাবার কারনে ব্যপক ক্ষতি হয়েছে। বিভিন্ন এলাকার সাইক্লোন শেল্টার গুলোতে অনেক লোকজন অবস্থান নিলে চেয়ারম্যান মেম্বরদের নেতৃত্ব শুকনো খাবার, খেচুরী সহ থাকার জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাধবী রায়, সহকারী কমিশনার তরিকুল ইসলাম উজ্জ্বল, ওসি আবুল কালাম সহ স্হানীয় দলীয় নেতা কর্মীদের সর্বক্ষনিক তৎপরতা থাকায় সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা ব্যবস্হা সুরক্ষিত ছিলো যে কারণে প্রানহানী রোধ সম্ভব হয়েছে বলে সচেতন মহলের অভিমত। এম পি নাসরীন জাহান রত্না, উপজেলা চেয়ারম্যান শামসুল আলম চুন্নু ও পৌর মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়ার সর্বক্ষনিক পর্যবেক্ষন সময় উপযোগী পদক্ষেপে অনেক বিচক্ষণতার পরিচয় ফুটে উঠে তারা পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত সবাইকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here