Home জাতীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো. আব্দুল্লাহ’র মৃত্যুতে “মুক্তিযোদ্ধা পরিবার সংসদের”শোক

বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো. আব্দুল্লাহ’র মৃত্যুতে “মুক্তিযোদ্ধা পরিবার সংসদের”শোক

The Minister of Health, Bangladesh, Mr. Mohammed Nasim calling on the Union Minister for Health and Family Welfare, Shri J.P. Nadda, in New Delhi on April 13, 2016.
Share It
  • 531
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    531
    Shares

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো. আব্দুল্লাহ এমপির মৃত্যুতে “বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার সংসদ” ন্যাশনাল কমান্ড কাউন্সিল (কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ) গভীর শোক প্রকাশ করেছে।

সংগঠনের সংগঠনের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা “শেখ শওকত ওসমান” সকল নির্বাহী চেয়ারম্যান ও নির্বাহি মহাসচিব, বীরপুত্র- হুমায়ুন কবীর হিমু (মাইন), নির্বাহী সাংগঠনিক সচিব, বীরপুত্র- মোঃ আশরাফুল ইসলাম (গাজী) সহ সংগঠনের সকল সাংগঠনিক ইউনিট শাখা-প্রশাখা সকল প্রকার নেতাকর্মীর পক্ষ থেকে, আজ এক শোক বার্তায় মোহাম্মদ নাসিমের পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।শোক বার্তায় নেতৃবৃন্দ বলেন, এই দুর্যোগময় মুহূর্তে তার চলে যাওয়া জাতির জন্য অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। তার দেশপ্রেম ও আদর্শ ভবিষ্যত প্রজন্মের পাথেয় হয়ে থাকবে।শোক বার্তায় নেতৃবৃন্দ মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ আর নেই (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। শনিবার (১৩ জুন) রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার ইন্তেকাল করেন বলে নিশ্চিত করেছেন প্রতিমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব নাজমুল হক সৈকত। তিনি ডায়াবেটিসসহ নানা স্বাস্থ্যগত জটিলতায় ভুগছিলেন।

শেখ মো. আব্দুল্লাহ ১৯৪৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জ জেলার মধুমতী নদীর তীরবর্তী কেকানিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা মরহুম আলহাজ শেখ মো. মতিউর রহমান এবং মা মরহুমা আলহাজ মোসাম্মৎ রাবেয়া খাতুন। চার ভাই তিন বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়।

ছাত্রজীবনেই রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন শেখ মো. আব্দুল্লাহ। খুলনার আযম খান কমার্স কলেজে প্রথম নির্বাচিত ভিপি শেখ মো. আব্দুল্লাহ ১৯৬৬ সালের ছয়দফা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে রাজনীতিতে গভীরভাবে সম্পৃক্ত হন। যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা যুবনেতা শেখ ফজলুল হক মনির নেতৃত্বে তিনি আওয়ামী যুবলীগে যোগদান করেন ।

এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর সরাসরি তত্ত্বাবধানে গঠিত গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর তিনি কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থান আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। এরপর ১৯৭০ এর নির্বাচনে স্থানীয় রাজনীতিতে জড়িত হয়ে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের ব্যাপক নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ফ্রন্ট মুজিব বাহিনীর সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত হয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।

শেখ মো. আব্দুল্লাহ দীর্ঘ দিন যাবত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নরসের সম্মানিত গভর্নর হিসেবে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করেন। এছাড়া ১৯৯৬-২০০১ সাল পর্যন্ত অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন।


Share It
  • 531
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    531
    Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here