মির্জাপুরে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার অভিযোগ আপন দুই ভাইয়ের

Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আলমগীর হোসেন হিরু নামে একজন জালিয়াতির মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন তার দুই ভাই। মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিলসহ সবরকম সুবিধা বন্ধের দাবি জানিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী বরাবর ১৪ নভেম্বর তারা লিখিত অভিযোগও করেছেন। তবে, অভিযুক্ত মুক্তিযোদ্ধা হিরু তাদের অভিযোগ অস্বীকার করেন।

আলমগীর হোসেন হিরু মির্জাপুর উপজেলা সদরের বাওয়ার কুমারজানী গ্রামের মৃত হাকিম উদ্দিনের ছেলে।

জানা গেছে, মৃত হাকিম উদ্দিনের চার ছেলের মধ্যে আলমগীর হোসেন হিরু সবার ছোট। বড় দুই ভাই বাছেদ মন্সী ও বাবুল মিয়া ওরফে বাবু মিয়ার দাবি, তাদের ছোট ভাই আলমগীর হোসেন হিরু প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ কোনোভাবেই মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেনি। অথচ মিথ্যা তথ্য দিয়ে কৌশলে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে নিজের নাম তালিকাভুক্ত করে সরকারি ভাতা নিচ্ছেন। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা কোটায় তার এক ছেলে পুলিশে ও মেয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে চাকরি হয়েছে। এছাড়া অপর ছেলেও একইভাবে পুলিশে চাকরি দেয়ার চেষ্টা করছেন।

তারা বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। কেউ মিথ্যা তথ্য দিয়ে শ্রেষ্ঠ সন্তানদের বিতর্কিত করবে তা নিজেদের বিবেক মেনে নিতে পারিনি বলে মন্ত্রী বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছি।’

অভিযোগে তদন্তসাপেক্ষে তারা আলমগীর হোসেন হিরুর মুক্তিযোদ্ধা সনদ/গেজেট স্থগিত করে ভাতাসহ সবরকম সুবিধা বাতিল করার দাবি জানান।

দুই ভাইয়ের অভিযোগ অস্বীকার করে আলমগীর হোসেন হিরু বলেন, ‘মির্জাপুর মুক্তিযোদ্ধা পৌর কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার মোহাম্মদ আলীর সঙ্গে যুদ্ধ করিছি।’ তিনি যে যুদ্ধে গিয়েছিলেন, তা তার বড় ভাইয়েরা জানেন না বলে দাবি করেন হিরু।

এদিকে, কমান্ডার মোহাম্মদ আলী আলমগীর হোসেন হিরুকে চেনেন না বলে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে একই গ্রামের বাসিন্দা ও মির্জাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার অধ্যাপক দুর্লভ বিশ্বাস বলেন, ‘আলমগীর হোসেন হিরু যে একজন মুক্তিযোদ্ধা ২০১০ সালের জুনে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল নির্বাচনের ভোটার তালিকা দেখে আমি তা প্রথম জানতে পারি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল মালেক বলেন, ‘যেহেতু পরিবার থেকে মন্ত্রী বরাবর অভিযোগ হয়েছে। মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’


Share It
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here